Monday, June 22, 2015

দুই মন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছে বিএনপি:আরটিএনএন

দুই মন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছে বিএনপি নিজস্ব প্রতিবেদক আরটিএনএন ঢাকা: পৃথক ঘটনায় খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর পদত্যাগ দাবি করেছে বিএনপি। সোমবার দুপুরে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে বিএনপির মুখপাত্র ও আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন এ দাবি করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর কাছে জানতে চাই- বিজিব
ি নায়েক আবদুর রাজ্জাককে ফিরিয়ে আনতে মিয়ানমারের সঙ্গে কূটনৈতিক অগ্রগতি কতটুকু? তাদের সঙ্গে কি আদৌ কোনো আলোচনা হয়েছে? এখন পর্যন্ত কেন দুদেশের মধ্যে পতাকা বৈঠক হয় নাই?’ তিনি বলেন, ‘পাঁচ দিন হয়ে গেলো বিজিবি নায়েক আবদুর রাজ্জাকের মুক্তির বিষয়টি এখনো নিশ্চিত নয়। আমরা আশা করেছিলাম তিনি খুব শিগগিরই ফিরে আসবেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী যদি কূটনৈতিক আলোচনায় ব্যর্থ হন, তাহলে তার পদত্যাগ করা উচিৎ।’ বিএনপির মুখপাত্র পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সমালোচনা করে বলেন, ‘ভারতের প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ সফরে আসলে তিনি বললেন- বেগম জিয়ার সঙ্গে তার বৈঠক হবে না। তিনি নেতিবাচক তথ্যতো ঠিকই তুলে ধরতে পারেন, কিন্তু এখন নায়েক আবদুর রাজ্জাকের বিষয়ে মুখে কুলুপ এটে রেখেছেন কেন? তার উচিত মিয়ানমারের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কি আলোচনা হয়েছে, কিভাবে আবদুর রাজ্জাক দেশে ফিরে আসবেন, তা পরিষ্কার করা। আমি তাকে ‘উসবুক’ বলতে চাই না।’ বিজিবি মহাপরিচালক আবদুল আজিজের কঠোর সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘তিনি রাজনীতিকদের ভাষায় কথা বলেন। তার কাছেই আবদুর রাজ্জাকের অবস্থান সম্পর্কে জানতে চাই। তাকেই জনগণকে জানাতে হবে। কারণ তিনি এই বাহিনীর প্রধান।’ গম কেলেঙ্কারির ঘটনায় খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলামের পদত্যাগ দাবি করে আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, ‘কেলেঙ্কারি এই সরকারের পিছু ছাড়ে না। রাষ্ট্রীয় কোষাকারে গম মজুদ থাকা সত্ত্বেও মন্ত্রী, এমপি ও নেতাদের স্বার্থের জন্য রাষ্ট্রের অর্থ লুট করে পঁচা গম আমদানি করা হয়েছে, যা খাওয়ার একেবারেই অযোগ্য।’ তিনি বলেন, ‘এই ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত তাদের বিচারের আওতায় আনতে হবে। বিচারের জন্য একটি তদন্ত কমিটি গঠন করতে হবে। তবে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলামকে স্বপদে রেখে তদন্ত করলে তা সুষ্ঠু হবে না। সুষ্ঠু বিচারের স্বার্থে তাকে সরে যেতে হবে।’ বিএনপির মুখপাত্র বলেন, ‘রাষ্ট্রের টাকা তসরুপ করে গম কেনার নামে যে লুটপাট চলছে তা বন্ধ করা উচিত। এই লুটপাটে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া ধ্বংস করে দেবে।’ নৌ পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খানের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘১০ টাকা লাভের আশায় নৌ-মন্ত্রী শাজাহান খানও গম দেয়ার কথা বলেছেন। সরকারের মন্ত্রী, এমপি ও নেতাকর্মীরা এখন সাপ্লাইয়ার হয়েছেন।’ মন্তব্য